Breaking News

করুণাময়ী – অঞ্জলী দাশ গুপ্ত

#আগমনীর সুর
#করুণাময়ী
#অঞ্জলী দাশ গুপ্ত
ঘরে বড্ড অভাব দুমুঠো যে খেতে দেবে বাচ্চাদের তার উপায় নেই মলিনা দেবীর।তিনি বলেন এত কষ্ট আর সহ্য হয় না।ভগবান কেন যে তাদের প্রতি সহৃদয় হন না জানেন না তিনি।সামনেই পুজো বাচ্চাদের যে জামাকাপড় কিনে দেবেন তার কোনো উপায় নেই।
পুজো কাছে আসতেই মোহন বাবু তার দুই ছেলেকে নিয়েও বেরিয়ে পড়লেন কলকাতায়।পুজো মানে ঢাক না হলে পুজো জমে না।কলকাতার এক নামি পুজোর প্যান্ডেলে তাদের ডাক পড়েছে।সেখানে পাড়ার ক্লাবে তাদের থাকার ব্যবস্থা করা হলো।পুজোর দিন গুলো মোহন বাবু আর তার দুই ছেলে ঢাক ও কাসর বাজিয়ে সারা পুজো মাতিয়ে তুলেছে।তাদের বাজনার তালে সকলে নেচে ওঠে।সবাই মুগ্ধ হয়ে তাদের বাজানো দেখে।বাবা ও ছেলের যুগলবন্দি সত্যি মনকাড়া।এ কয় দিনে মোহন বাবুর দুই ছেলে নেপু ও হিরু সকলের প্রিয় হয়ে ওঠে।
দেখতে দেখতে চোখের নিমিষে যেন পুজোর শেষ লগ্নে উপস্থিত।তাদের আবার বাড়ি ফেরার পালা।পুজোর শেষে মোহন বাবু তার দুই ছেলেকে নিয়ে পাড়ায় বেড়িয়ে পড়েন কিছু সাহায্যের জন্য।কেউ বা চাল ,ডাল ও সব্জি দিচ্ছে।কেউবা টাকা ও জামাকাপড়।এইসব পেয়ে তারা খুব আনন্দিত।তারাও এবার জামাকাপড় পরে আনন্দ করবে।এই দৃশ্য দেখে মোহন বাবুর দুই চোখের কোনে জল ভেসে ওঠে।
হিরু ও নেপুর পড়াশোনায় খুব আগহ।তারা চায় পড়াশোনা শিখে চাকরি করবে ও বাবাকে সাহায্য করবে।এমন সময় অরুণা ঘর থেকে বেড়ান আর দেখেন রাস্তায় একটা কাগজের মধ্যে কিছু লেখা আছে সেটা নিয়ে হিরু ও নেপু ভেঙে ভেঙে পড়ছে।এই দেখে তিনি ভীষণ খুশি হলেন।আর তাদের আগ্রহ পড়াশোনার প্রতি তাকে অবাক করে।তিনি মোহন বাবুকে বলেন ওদের এই মিষ্টি মুখ দেখে আজ মনে হলো সব যেন তিনি ফিরে পেলেন।মাতৃ স্নেহে তিনি ওদের কাছে টেনে নিয়ে বললেন- আজ থেকে ওদের পড়াশোনা ও যাবতীয় যা খরচা হবে সব তিনি বহন করবেন।তিনি ওদের মানুষের মত মানুষ করতে চান। যাতে তারা মাথা উঁচু করে বাঁচে।মোহন বাবু এর উত্তরে কি বলবেন বুঝতে পারছিলেন না ….তিনি চোখ ভরা কান্না নিয়ে হাত জড়ো করে মাটিতে বসে তাকে প্রনাম করলেন।
মা দুর্গা হয়ত আজ ওনার মধ্যে সায়িত হয়েছেন।তাই তিনি তাদের মনের সব কষ্ট অনুভব করতে পেরেছেন।মা যেমন তার সন্তানদের না বলা দুঃখ বুঝে নেন। তেমনই অরুণা দেবীও আজ ” মা ” হয়ে তাদের জীবনে আশীর্বাদ রূপে বর প্রদান করলেন।এই ভাবেই “মা ” আসুক যুগে যুগে ভিন্ন ভিন্ন রূপে।

Check Also

মুখেভাত – ঝিলিক মুখার্জী গোস্বামী

মুখেভাত – ঝিলিক মুখার্জী গোস্বামী ভেলভেটের কাপড়ে মোড়া লাল রঙের অ্যালবাম টা আজও একইরকম ভাবে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।